Search
Close this search box.

এরশাদের দুর্নীতির মামলার সাজার বিরুদ্ধে দুই যুগ পর আপিল শুনানির উদ্যোগ

শেয়ার করুন

Facebook
X
Skype
WhatsApp
OK
Digg
LinkedIn
Pinterest
Email
Print
er_118754
সাবেক প্রেসিডেন্ট জাপা চেয়ারম্যান হুসাইন মু. এরশাদ।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের বিরুদ্ধে দেয়া তিন বছরের সাজার রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিল শুনানির উদ্যোগ নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। প্রায় দুই যুগ পর দুর্নীতির মামলায় দুদক মামলাটির শুনানীর উদ্যোগ নেয়।

এই মামলায় ১৯৯২ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি বিচারিক আদালত এরশাদকে তিন বছরের সাজা দিয়েছিল। দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে ওই বছরই আপিল করেন এরশাদ। সেই আপিলে ২০১২ সালের জুনে দুদক পক্ষভুক্ত হয়।

সোমবার (২২ আগস্ট) দুদকের পক্ষ থেকে ওই আপিল শুনানির জন্য হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে আবেদন করা হয়।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, রাষ্ট্রপতি থাকাকালে ১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর থেকে ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত সেনা শাসক এরশাদ বিভিন্ন উপহার রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দেননি বলে অভিযোগ আনা হয়। সেই অভিযোগে ১৯৯১ সালের ৮ জানুয়ারি তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরোর উপপরিচালক সেনানিবাস থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় ১ কোটি ৯০ লাখ ৮১ হাজার ৫৬৫ টাকার আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়।

জাতীয়

১৮ জুলা ২০২৪

সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি নন কোটাব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীরা। তাদের প্ল্যাটফর্ম বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের এক বিজ্ঞপ্তিতে বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই)

জাতীয়

১৮ জুলা ২০২৪

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে বসার বিষয়ে সরকারের ইতিবাচক বার্তার পর বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক হাসনাত আবদুল্লাহ বলেছেন, গুলি আর আলোচনা

জাতীয়

১৮ জুলা ২০২৪

কোটা সংস্কারপন্থিদের আন্দোলনে উত্তাল দেশ। এরইমধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের সঙ্গে চলছে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া। তারই মধ্যে ধানমনণ্ডির রাপা