Search
Close this search box.

চবি থেকে খালেদা ও ইউনুসের নাম মুছতে ছাত্রলীগের আল্টিমেটাম

শেয়ার করুন

Facebook
X
Skype
WhatsApp
OK
Digg
LinkedIn
Pinterest
Email
Print
.

সাম্প্রতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে মৌলবাদ, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে শনিবার মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়-এর সহ-সভাপতি মোঃ মনসুর আলম-এর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এর সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফজলে রাব্বী সুজন।

তিনি বলেন, চবি ছাত্রীহল থেকে জঙ্গিমাতা খালেদা জিয়া, সমাজবিজ্ঞান অনুষদ থেকে সুদখোর, দুর্নীতির মানসপুত্র ইউনুস এর নাম মুছে ফেলতে চবি উপাচার্য বরাবর সাত দিনের আল্টিমেটাম দেয়া হচ্ছে।

অন্যথায়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় নিজ দায়িত্বে এইসব নাম মুছে দিবে। চবি জিমনেশিয়াম হলের নামকরণ শহীদ শেখ কামাল, ছাত্রী হলের নামকরণ শহীদ জাহানারা ইমাম এবং সমাজবিজ্ঞান অনুষদের নামকরণ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত-এর নামানুসারে নামকরণ করার প্রস্তাবনা জানান।

.

বক্তারা আরো বলেন, সেই ১৯৫২ থেকে শুরু করে ২০১৭ পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রতিটা আন্দোলন, সংগ্রামে ছাত্রলীগের রক্ত মিশে আছে। তারই ধারাবাহিকতায়, সর্বশেষ, সিলেটে জঙ্গিদমন অভিযানে প্রাণ হারান সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের পরিবেশ বিষয়ক উপ-সম্পাদক জান্নাতুল ফাহিম।

বক্তারা বলেন বিএনপি-জামাত জোটই জঙ্গিদের মদদদাতা, জঙ্গিমাতা খালেদা জিয়ার আশ্রয় প্রশ্রয়ে, জঙ্গিবাদ লেলিয়ে দিয়ে জননেত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা’র সব অর্জন, সাফল্য, কৃতিত্বকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাইছে। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত ছাত্রলীগের একবিন্দু রক্ত বাকি থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত বিএনপি-জামাত, স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিদের যেখানে পাবে সেখানেই প্রতিরোধ করবে বলে প্রতিজ্ঞা ব্যক্ত করেন। পাশাপাশি আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন, সাফল্য ও ভবিষ্যৎ রূপরেখা জনগণের দুয়ারে পৌঁছে দেওয়ার গুরু দায়িত্ব ছাত্রলিগকেই পালন করতে হবে বলে জানান বক্তারা।

আগামী ৪ই এপ্রিল, সারাদেশ ব্যাপী জঙ্গিদের অপতৎপরতা এবং জঙ্গিবাদ রুখতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক “গনস্বাক্ষর” কর্মসূচীর ঘোষণা দেওয়ার মাধ্যমে মানববন্ধনের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

জাতীয়

১৮ জুলা ২০২৪

কোটা সংস্কারপন্থিদের আন্দোলনে উত্তাল দেশ। এরইমধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগের সঙ্গে চলছে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া। তারই মধ্যে ধানমনণ্ডির রাপা

জাতীয়

১৮ জুলা ২০২৪

কোটা আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি সরকার বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। আজ বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সাংবাদিকদের প্রশ্নে উত্তরে তিনি

জাতীয়

১৮ জুলা ২০২৪

চলমান কোটা আন্দোলনে শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা ও দেশের বিভিন্ন জায়গায় হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের ডাকে সারা দেশে চলছে